১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

ঐতিহবাহী টাউন খালের নাব্যতা ফেরাতে ও দখলমুক্ত করতে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঐতিহবাহী টাউন খালের নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে এবং নৌকা চলাচলে বাধাগ্রস্থ ৪ টি সাঁকোসহ অবৈধ স্থাপনা অপসারণের দাবীতে খাল ঘিরে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নদী নিরাপত্তার সামাজিক সংগঠন কমিটি “নোঙর” এর পক্ষ থেকে শনিবার সকাল থেকে দিনব্যাপী এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান চলছে। এ উপলক্ষ্যে টাউন খাল থানা ঘাটের পাশে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজউদ্দিন জামি।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নোঙর বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও প্রতিষ্ঠাতা সুমন শামস।

নোঙর জেলা শাখার সভাপতি শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান এডঃ মোঃ লোকমান হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ইব্রাহিম খান সাদাত, সাংবাদিক ও আবৃত্তিকার মোঃ মনির হোসেন, সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক খালেদা মুন্নী প্রমূখ।

এ সময বক্তারা, ঐতিহ্যবাহী টাউন খালটি দিন দিন দখল-দূষনের কারণে নিজের অস্তিত্ব হারিয়ে আজ বিলিন হওয়ার পথে। বিভিন্ন সময় খালটি পরিচ্ছন্নতার উদ্যোগ নেয়া হলেও তার তেমন কোন কার্যকর ভূমিকা নেই।

দিনের পর দিন খালটির বিভিন্ন অংশে দখলের প্রতিযোগিতা বাড়ছে। এতে করে জেলা ঐতিহ্যের সাথে মিশে থাকা খালটি এখন সরু ড্রেনে পরিণত হয়েছে। তাই এই খালটিকে বাঁচাতে জনসচেতনতা গড়ে তোলার পাশাপাশি খালটির বিভিন্ন অংশ দখলমুক্ত করতে হবে। শুধু তাই নয় এর নাব্যতা ফেরাতে দ্রুত সংশ্লিষ্টদের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। অন্যথায় খালটি কেবল স্মৃতি হয়েই থেকে যাবে।

এছাড়াও বক্তারা, খালের বিভিন্ন অংশে থাকা অবৈধ সাঁকো অপসারণ করে নৌ চলাচলের ব্যবস্থা করতে দাবী জানান।

পরে অতিথিবৃন্দ টাউন খালের আশপাশসহ বিভিন্ন অংশে পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালান। অভিযানে শহরের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ নোঙর এর সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, খালটি তিতাস নদীর টানবাজার কান্দিপাড়া এলাকা থেকে সৃষ্টি হয়ে শহরের ভেতর দিয়ে গোকার্ন ঘাট পর্যন্ত প্রবাহিত হয়ে ফের তিতাস নদীতেই মিলিত হয়েছে।