১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

হুইল চেয়ার ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার:

ভারত ও নেপালে ক্রিকেট জয়ের পর বিশ্বের বুকে অন্যন্য এক বাংলাদেশকে তুলে ধরার স্বপ্ন নিয়ে বিজয়ের মাসে শুক্রবার সকালে প্রীতি টি-টুয়েন্টি ম্যাচে অংশ গ্রহন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া ড্রিম ফর ডিস্অ্যাভিলিট ফাউন্ডেশনের ক্রিকেটাররা। তারা লাল-সবুজের জার্সি গায়ে দিয়ে লাল ও সবুজ দলে ভাগ হয়ে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচে অংশ নেন ।

হুইল চেয়ারে বসে ক্রিকেটারদের এই ক্রীড়ানৈপুন্য দেখতে সকালে শিশিরভেজা নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামে ছিলো দর্শকদের ভীড়।

শুক্রবার সকালে নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ উদ্বোধন করেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইডিয়াল রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ সোপানুল ইসলাম সোপান।

ক্রিকেট দলের প্রতিষ্ঠাতা ও ড্রিমফর ডিস্অ্যাভিলিটি ফাউন্ডেশনের সভাপতি হেদায়েতুল আজিজ মুন্নার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ ফয়েজুর রহমান ফয়েজ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ক্রিকেটাররা জানান, বুকভরা স্বপ্ন্ আর শারিরীক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে গত বছর এপ্রিল মাসে ত্রি-দেশীয় সিরিজে ভারতের কলকাতায় ভারত ও নেপালকে পরাজিত করে বাংলাদেশের পক্ষে জয় ছিনিয়ে এনেছিলেন। এখন তাদের স্বপ্ন একদিন বিশ্বকাপ জয় করা।

সবুজ দলের অধিনায়ক ইমদাদুল আহমেদ খান বলেন, আজকের এই প্রীতি ম্যাচ আমাদের অনুশীলন হিসেবে কাজে আসবে। আমাদের সামনে অনেকে খেলা আছে। সেগুলোতে আমরা ভালো করতে চাই। বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল ত্রিদেশীয় সিরিজে আমরা চ্যাম্পিয়ান হয়ে ছিলাম। আমরা আশা করি আমাদের দেশেও আমরা বিপিএলের মত ম্যাচ খেলবো। তাই এখানে আমরা বিভিন্ন জেলার ক্রিকেটাররা একত্রিত হয়েছি।

লাল দলের অধিনায়ক মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা যারা শারিরীক প্রতিবন্ধী আমরা সবাই বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নেমেছি। বিজয়ের এই মাসে আমরা লাল দল ও সবুজ দলে ভাগ হয়ে একটি প্রীতি ম্যাচে অংশ গ্রহন করেছি। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আন্তর্জাতিক মানের ম্যাচ খেলার জন্য আমরা দেশের বাইরে যাব।

ত্রি-দেশীয় সিরিজে আমরা চ্যাম্পিয়ান হয়েছি। সেই জয়ের ধারা যেন অব্যাহত এমনটাই প্রত্যাশা করছি।

প্রীতি ম্যাচের উদ্বোধন শেষে উদ্বোধক অধ্যক্ষ সোপানুল ইসলাম সোপান বলেন, পদ্মাসেতু বাঙালীর স্বপ্নজয়ের নতুন অধ্যায়ের সৃষ্টি করেছে। হুইল চেয়ার ক্রিকেট টিমের সদস্যরা ইতিমধ্যে ত্রি-দেশীয় সিরিজে আমরা চ্যাম্পিয়ান হয়েছে। আশাকরি একদিন তারা সারা বিশ্বে বাংলাদেশের লাল সবুজ উড়াবে।

ডাঃ ফয়েজুর রহমান ফয়েজ বলেন, আশা করি এই ক্রিকেট দলটি একদিন বিশ্বজয় করে আমাদের স্বপ্ন্ পূরন করবে। তাদের জন্য শুভ কামনা থাকবে।

এ ব্যাপারে ক্রিকে টীমের প্রতিষ্ঠাতা ও ড্রিমফর ডিস্অ্যাভিলিটি ফাউন্ডেশনের সভাপতি হেদায়েতুল আজিজ মুন্না বলেন, করোনাভাইরাস শেষ হলে আমরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে টুর্নামেন্টে অংশ গ্রহন করবো। দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই।

প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচে লাল দল ব্যাট করতে নেমে ১১৬ রান করতে সক্ষম হন। জবাবে সবুজ দল সব কটি উইকেট হারিয়ে ১০৪রান করে। ১২রানে জয়লাভ করে লাল দল। ম্যান অব দ্যা ম্যাচ নির্বাচিত হন লাল দলের শফিকুল ইসলাম।