১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ইমাম ওলামা পরিষদ ও কওমী মাদরাসার সংবাদ বর্জনের ঘোষণা দিলেন আশুগঞ্জে সাংবাদিকরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে কুটক্তি, সাংবাদিকদের সাথে অশোভন আচরন ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলার চেষ্টার প্রতিবাদে উপজেলা ইমাম ওলামা পরিষদ এবং কওমী মাদরাসার সকল সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সাংবাদিকরা। বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকেও অবহিত করেন সাংবাদিকরা। গতকাল রোববার দুপুরে আশুগঞ্জ প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক প্রতিবাদ সভায় এই সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

প্রেসক্লাবের নাসির আহমেদ সম্মেলন কক্ষে ক্লাবের সভাপতি মোহাম্মদ মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম পারভেজ, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন, টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি আক্তারুজ্জামান রঞ্জন, সাধারণ সম্পাদক সাদেকুল ইসলাম সাচ্চু, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি আবু আব্দুল্লাহ, হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসহাক সুমন, লোকমান হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক তাইফুর রহমান, সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

প্রতিবাদ সভায় এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত উপজেলা ইমাম ওলামা পরিষদ ও কওমী মাদরাসার সকল সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সাংবাদিকগন। পরে সাংবাদিক নেতারা বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করেন।

উল্লেখ্য,  রোববার সকালে উপজেলার রেলগেইট এলাকায় উপজেলা ইমাম ওলামা পরিষদের একটি মানববন্ধন থেকে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ ওবায়দুল্লাহ তার বক্তব্যে স্থানীয় সাংবাদিকদের বিভিন্ন ধরনের কটুক্তি করেন। তার বক্তব্য শেষ হলে উপস্থিত সাংবাদিক নেতারা তার কাছে বিষয়টি জানতে গেলে ওবায়দুল্লাহর অনুসারিরা ক্ষিপ্ত হয়ে প্রথমে সাংবাদিকদের সাথে অশালীন আচরণ করেন এবং এক পর্যায়ে লাঠিসোটা নিয়ে সাংবাদিকদের উপর আক্রমন করতে আসেন। পরে পুলিশের সহযোগিতায় সাংবাদিকরা রক্ষা পান।

এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ জাবেদ মাহমুদের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, বিষয়টি অবহিত হয়েছি।