১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

নাসিরনগর ও বিজয়নগরে দু পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১,আহত-৩২,আটক-৩

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে পাওনা টাকাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে আক্কাস আলী (৩৮) নামে এক ব্যক্তি নিহত ও ১২ জন আহত হয়েছে। আক্কাস আলী উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়নের মহিষবেড় গ্রামের মৃত মারাজ মিয়ার ছেলে। সোমবার মহিষবেড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,উপজেলার মহিষবেড় গ্রামের হোসেন আলী ৫০ হাজার টাকা দেন একেই গ্রামের রুহুল আমিনকে। এনিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে একাধিবার বাগবিতন্ডা হয়। এর জের ধরে সোমবার ক্বারী বাড়ি ও টুকানি বাড়ির পক্ষের লোকজন বাগবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাধলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে এক পক্ষ অন্য পক্ষের ওপর হামলা চালায়।এতে আক্কাস আলীসহ প্রায় ১২ জন আহত হয়।

আশংকাজনক অবস্থায় আক্কাস আলীকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে আলফাজ আলী(৬০),আক্তার মিয়া(৫৫) ও আব্দুল্লাহকে(১৫) গ্রেফতার করা হয়েছে।

নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি এটিএম আরিচুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে জেলা সদর হাসপাতালে রয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। সোমবার (১৬ নভেম্বর) উপজেলার চরইসলামপুর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটে। এ ঘটনা ২০ জন আহত হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গ্রামে বিলের পাড়ে শিশু-কিশোররা খেলা করছিল। খেলায় তাদের মধ্যে বাকবিতন্ড হয়। এ সময় সেখানে উপস্থিত উত্তরপাড়া চৌধুরী বাড়ির তোরাব আলীর স্ত্রী আরজিনা খাতুন (৩৫) দক্ষিণপাড়া চৌধুরী বাড়ির জামাল মিয়াকে নাম ধরে গালি দেন। জামাল উপস্থিত না থাকলেও তার বাড়ির কয়েকজন নারী সেখানে ছিল। জামালকে ওই নারীরা বাড়িতে গিয়ে আরজিনার গালি দেওয়ার কথাটি জানান। এরই জেরে দক্ষিণ চৌধুরী বাড়ির জামালের লোকজন হামলা করে উত্তরপাড়া চৌধুরী বাড়ির লোকজনের ওপর। এতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে নারীসহ উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন।

আহতদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আহতরা হলেন- ইয়াকুব আলী (৩০), তোরাব আলী (৪০), নোয়াজ আলী (৪৫), বাবুল মিয়া (১৯), আশিক মিয়া (৩৭), অন্তর আলী (১৫), গোলাম আলী (৩৫), হুমায়ুন (২৫), তানিয়া (২৫)।

এ ব্যাপারে বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান জানান, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।