৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস মওলানা ভাসানীকে বাদ দিয়ে লিখা যাবেনা

স্টাফ রিপোর্টার,
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় সাম্রাজ্যবাদ-আধিপত্যবাদ বিরোধী আপোষহীন ব্যক্তিত্ব, কৃষক শ্রমিক মেহনতি মানুষের মুক্তির সংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৩ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে  রোববার বিকেলে ভাসানী চর্চা কেন্দ্র ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সাংবাদিক আবদুন নূরের সভাপতিত্বে এবং অ্যাডভোকেট মোঃ নাসিরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ৭২’র সংবিধান পুনঃপ্রবর্তন কমিটির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোঃ জামাল, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মতিলাল বনিক, জেলা জাসদের সভাপতি অ্যাডভোকেট আকতার হোসেন সাঈদ, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী মাসুদ আহমেদ, বাংলাদেশ জাসদের সাংগঠনিক সম্পাদক হোসাইন আহাম্মদ তফসির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস মওলানা ভাসানীকে বাদ দিয়ে লিখা যাবেনা। বক্তারা বলেন, ইতিহাসে যার যেটুকু প্রাপ্য তা দেয়া না হলে আগামী প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস থেকে বঞ্চিত হবে। তারা আরো বলেন, মওলানা ভাসানী আজীবন সাম্রাজ্যবাদ আধিপত্যবাদের বিরুদ্ধে এবং কৃষক শ্রমিক মেহনতি মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে লড়াই-সংগ্রাম করেছেন। ভাসানীর বর্নাঢ্য রাজনৈতিক জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে সাম্রাজ্যবাদ আধিপত্যবাদ বিরোধী তথা গণতান্ত্রিক আন্দোলনে শরীক হওয়ার জন্য বক্তারা উপস্থিত সকলের প্রতি আহবান জানান।