৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

সামাজিক অনাচার, মাদক, সন্ত্রাস ও বাল্য বিয়ে রোধে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে-র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রাইমারী ট্রেনিং ইনষ্টিটিউট (পিটিআই) সংলগ্ন পরীক্ষন বিদ্যালয়ের বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পুর্নমিলনী পিটিআই চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বে-সামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

পিটিআই’র সুপারিনটেনডেন্ট মু. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সাহেদুল ইসলাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি খ. আ.ম রশিদুল ইসলাম, সাবেক সুপারিনটেনডেন্ট কফিল উদ্দিন, হাবিবুর রহমান ও জেসমিন খানম, সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট উম্মে কুলসুম, জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সামাজিক অনাচার, মাদক, সন্ত্রাস ও বাল্য বিয়ে রোধে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আমাদের পূর্ব পুরুষরা ঢাকা বিশবািবদ্যালয় প্রতিষ্ঠার সাথে সম্পর্কযুক্ত ছিলেন। এই ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাঙ্গালী মুসলমানদের প্রথম ব্যারিষ্টার জন্ম দিয়েছে। এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বড়বড় মানুষেরা ব্রিটিশকে এই দেশ থেকে তাড়িয়ে স্বাধীন দেশ গঠনে অনেক অনেক বড় ভূমিকা রেখেছেন। এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষেরা পাকিস্তানের স্বৈরতান্ত্রিক শাসনের অবসান ঘটিয়ে জনগনের বাংলাদেশ গঠনে অনেক অবদান রেখেছেন। এখন দূর্ভাগ্যবশঃত আমরা তার চেয়ে অনেক দূরে আছি। সুতরাং জনগনের ব্রাহ্মণবাড়িয়া, উন্নত ও সমৃদ্ধ ব্রাহ্মণবাড়িয়া গঠনের জন্যে ছাত্র-ছাত্রীদের এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে বলেছেন ২০৪১ সালের মধ্যে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়বেন সেটি সম্ভব হবে। যদিও এরই মধ্যে এ লক্ষ্যে সরকার নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।