৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

আইনমন্ত্রীর উপস্থিতিতে দুই মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ১৫, মটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ, ব্যাংক-গাড়ি-দোকানপাট ভাংচুর

স্টাফ রিপোর্টার:

শুক্রবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী এ্যাড. আনিসুল হকের উপস্থিতিতে আ’লীগের দুই মেয়র প্রত্যাশী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়েছে। এ সময় ৪টি মটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগহর ১০টি ব্যাপক ভাংচুর চালানো হয়। এছাড়া ব্যাংক এশিয়া গ্লাসসহ কয়েকটি দোকান ভাংচুর করা হয়। শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের আগমন উপলক্ষ্যে বেলা ১২টার দিকে কসবা পৌরসভার মেয়র এমরান উদ্দিন জুয়েল ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এম. এ. আজিজের সমর্থকরা উপজেলা পরিষদের সামনে মিছিল নিয়ে আসেন। জুয়েল ও আজিজ আসন্ন কসবা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী। এক পর্যায়ে জুয়েল ও আজিজ সমর্থকরা কথা কাটাকাটি, হাতাহাতি ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পর সংঘর্ষ থেমে যায়। এরপর বেলা সাড়ে ১২টার দিকে আইনমন্ত্রী তাঁর পূর্ব নির্ধারিত স্মার্ট কার্ড বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে উপজেলা পরিষদের হলরুমে আসেন।

এসময় আবারও সশস্ত্র সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দু’পক্ষের সমর্থকরা। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১৫জন আহত হয়। এসময় উপজেলা মার্কেট, পুরাতন বাজারের সমস্ত দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসা লোকজন দিকবেদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। পরে মন্ত্রী দ্রুত অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করে তার বাড়ি কসবার পানিয়ারুপ গ্রামে চলে যান। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে ও ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। কসবা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর ভূইয়া জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

কসবায় যুবদলের ঝাড়– ও জুতা…