Advertisement

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উচ্চতর আসনে স্থান পেয়েছে – গণপূর্ত মন্ত্রী

NewsBrahmanbaria

এই আর্টিকেল টি ৪৮।

নিউজ ডেস্ক,

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উচ্চতর আসনে স্থান পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্তমানে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করছেন। তিনি শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে সদর উপজেলা প্রশাসন ও সদর উপজেলা পরিষদের আয়োজিত তাঁকে দেয়া গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

এসময় মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের একটি দেশ দিয়েছেন। সেই কল্যাণে আজ আমরা মন্ত্রী। আমি আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ ও ঋণী আপনারা আমাকে চার বার বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত করছেন।

তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে গৃহায়ণ ও গনপূর্ত মন্ত্রী নিযুক্ত করেছেন। এটা একটা বড় মন্ত্রণালয়, কাজের জায়গা। আমি ইতিপূর্বে আমাকে দেয়া অন্যান্য সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আমি আমার পরিকল্পনার কথা বলেছি। আজকেও বলি আগামী প্রজন্মের বাসযোগ্য একটি নান্দনিক ব্রাহ্মণবাড়িয়া বির্নিমাণে আমি কাজ করবো। নির্বাচনের আগে জনগণকে দেয়া নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী কাজ করবো। জনগণকে দেয়া সকল প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করবো।

এর আগে তিনি সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সদর উপজেলার মাসিক সভায় বলেন, ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি থেকে ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাই-চাঁদাবাজি বন্ধ ছিলো। হঠাৎ করে কেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাই-চাঁদাবাজি বেড়েছে তা আমার বোধগম্য নয়। তিনি বলেন, সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ছিনতাই হয়েছে। মাদক ব্যবসায়ীরা আবারো নড়াচড়া করছে। আমি পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসককে বলেছি শহরের ছিনতাই-চাঁদাবাজি অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। কারা এসবের সাথে জড়িত তাদেরকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে হবে।

তিনি বলেন, আমি খোঁজ নিয়ে জেনেছি এসব অপকর্মের সাথে কোন রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা নেই। তারপরও বলি এসব অপকর্মের সাথে যদি আওয়ামীলীগ বা অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের কেউ জড়িত থাকে অবশ্যই তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিনতাই-চাঁদাবাজি, ভূমিদস্যুতা, সন্ত্রাসী কার্যকলাপ চলবে না। ব্রাহ্মণবাড়িয়া হবে নিরাপদ শহর।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহাম্মদ সেলিম শেখের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক ও বাচিক শিল্পী মোঃ মনির হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত গণসংবর্ধনা ও মাসিক আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, মাউশির সাবেক মহাপরিচালক ও ইউনির্ভাসিটি অব ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাবেক ট্রেজারার প্রফেসর ফাহিমা খাতুন, জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ হেলাল উদ্দিন, সহ-সভাপতি হাজী মোঃ হেলাল উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এড. লোকমান হোসেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলামিনুল হক পাভেল।

গণসংবর্ধনার আগে মন্ত্রী সদর উপজেলার ঘাটুরা থেকে শিমরাইলকান্দি শেখ হাসিনা সড়ক নির্মানসহ ২১টি উন্নয়নের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এসব উন্নয়ন প্রকল্পের প্রাক্কলিত মূল্য ধরা হয়েছে ৩১ কোটি টাকা।

অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, সদর উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তাগণ, আইন-শৃংখলা কমিটির সদস্যগণ, ইউপি সদস্যগণসহ জেলা আওয়ামীলীগগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement

Sorry, no post hare.

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com