Advertisement

ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ৩ আসনে সাত জনের একজনও পাত্তা পাবেন না মোকতাদির চৌধুরীর কাছে  

NewsBrahmanbaria

এই আর্টিকেল টি ৬৯।

নিউজ ডেস্ক,

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পাড় করছেন প্রার্থীরা। রাতদিন ছুটে চলেছেন একপ্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। এ আসনে ৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এলাকার উন্নয়নের কারণে এগিয়ে বর্তমান এমপি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের এমপি মোকতাদির চৌধুরী এনিয়ে ৪ বারের মতো নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নিচ্ছেন। শিক্ষা, মাদক, চাঁদাবাজ মুক্ত ও উন্নয়নের কারণে নিজ নির্বাচনি এলাকায় প্রশংসা কুড়িয়েছেন তিনি। বিশেষ করে জেলা শহরের সাথে বিজয়নগরের যাতায়াতে শেখ হাসিনা সড়ক নির্মাণে জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে মোকতাদির চৌধুরীর।

নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিদিনই প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পাড় করছেন মোকতাদির চৌধুরী। এসব প্রচারণায় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। নিজের জয়ের বিষয়ে আশাবাদী মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, আগামী নির্বাচনে আমার বিশ্বাস শতকরা ৭০ ভাগ ভোট পড়বে। সেখানে ৫০ ভাগ ভোট পেলে আমিও খুশি হব। আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলতে পারবো নেত্রী দেখেন, ৭১ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ বঙ্গবন্ধুর পক্ষে ছিল। ২০২৪ সালের নির্বাচনেও বঙ্গবন্ধুর তনয়া আপনার পক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ আছে।

মোকতাদির চৌধুরী বলেন, নেশা অস্বাস্থ্যকর, নেশার ফেরিওয়ালারাও এ নির্বাচনে আছে। আমরা যারা দুধের ফেরিওয়ালা আমরাও এ নির্বাচনে আছি। আমরা উন্নয়নের দুধ বিক্রি করি। শেখ হাসিনা হচ্ছেন উন্নয়নের গোয়ালিনী। শেখ হাসিনা দুধ উৎপাদন করেন। তিনি আমাদের উন্নয়নের দুধ দেন। আমরা যারা এমপি তারা এনে তা বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেই। আমরা দুধের ফেরিওয়ালা। পঁচা দুর্গন্ধ যুক্ত পানির ফেরিওয়ালারাও নির্বাচনে আছে।

তিনি আরও বলেন, ‘কিছু লোক আছে যারা সমাজের কথা ভাবে না। দেশের কথা ভাবে না। আমাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যেতে পারে, এমন সব কারবারের সঙ্গে জড়িত। আমরা বলব, আপনার সন্তান যেন নেশাগ্রস্ত না হয়, বা আপনার সন্তানকে নেশার ভেতরে বেঁধে ফেলে এমন মানুষদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখবেন না। এমন মানুষকে আপনারা সমর্থন করলে নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার সামিল হবে।’

তিনি ছাড়াও নির্বাচনে মাদকে হালাল ও মেডিসিন বলে ভাইরাল হওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী ফিরোজুর রহমান ওলিও, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের প্রার্থী জামাল রানা, খেলাফত আন্দোলনের প্রার্থী মুজিবুর রহমান হামিদী, জাসদের আব্দুর রহমান খান ওমর, এনপিপির সৈয়দ মাহমুদুল হক আক্কাছ, ইসলামী ফ্রন্টের সৈয়দ মোঃ নূরে আজম ও সুপ্রীম পার্টির সোহেল মোল্লা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ইমরান আলী মামুন নামে এক যুবকের সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ৩ আসনের নির্বাচনী হালচাল নিয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমরা উন্নয়নের পক্ষে আছি, যিনি পূর্ব এলাকার উন্নয়নে ভূমিকা রেখেছেন এবং ভবিষ্যতেও রাখবেন আমরা তাকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করব। এক্ষেত্রে মোকতাদির চৌধুরীর কোন বিকল্প নেই।

ষাটোর্ধ আফরোজ শাহ নামের আরেকজন জানান, ৮ প্রার্থীর মধ্যে মোকতাদির চৌধুরীই সেরা। শিক্ষা, দক্ষতা, মেধায় ওনার ধারে কাছেও কেউ নেই। বাকি সাতজনের একজনও উনার কাছে ভোটের মাঠে পাত্তাই পাবেননা।

Advertisement

Sorry, no post hare.

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com