Advertisement

আওয়ামীলীগকে ক্ষমতা থেকে নামানো আমাদের প্রথম দায়িত্ব-গয়েশ্বর চন্দ্র রায়

NewsBrahmanbaria

এই আর্টিকেল টি ৩৩১।

স্টাফ রিপোর্টার,ব্রাহ্মণবাড়িয়া

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, জনগণের বিরুদ্ধে গিয়ে, হত্যা, খুন, গুম ও মামলা দিয়ে কোন সরকার রেহাই পায়নাই। সুতরাং এই সরকারেরও রেহাই পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
তিনি গতকাল বুধবার দুপুরে জেলার বাঞ্ছারাপুর উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়নের চরশিবপুর গ্রামে নিহত ছাত্রদল নেতা নয়নের নানার বাড়িতে তার মাতা, স্ত্রী ও পরিবারবর্গের সাথে দেখা করে তাদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে এক শোক সভায় একথা বলেন।

শোক সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় আরো বলেন, আজ ব্যাংকগুলোতে টাকা নেই। উনয়নের নামে তারা দুর্নীতি করে টাকা পকেটস্থ করেছে। তিনি বলেন, সরকার প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে ভিন্নমতালম্বীদের কথা বলতে দিচ্ছে না। একের পর এক মামলা দিয়ে তাদেরকে হয়রানি করছে। একের পর এক পাখির মতো গুলি করে হত্যা করছে। তিনি বলেন, যত লুটপাট হয়েছে এই লুটপাটের হিসাব আমরা নিব। দেশের মুদ্রা পাচার হয়েছে সেই হিসাব আমরা নেব।
তিনি বলেন, অবশ্যই নয়ন হত্যার বিচার হবে। নয়নের রক্ত বৃথা যাবেনা।

তিনি বলেন, তারেক রহমান বিদেশে আছে শখ করে নয়, বাধ্য হয়ে। ওয়ান ইলাভেনের সময় অন্যায়ভাবে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁর কোমরের হাড় ভেঙ্গে গেছে। বিদেশে বর্তমানে তাঁর চিকিৎসা চলছে। এই দেশে তার জীবন হুমকির মুখে। এই হুমকি দেয় শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ। তাদেরকে ক্ষমতা থেকে নামানো আমাদের প্রথম দায়িত্ব। তারপর তারেক রহমান কে দেশে আসতে আহবান করব।

শোক সভায় বিএনপির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা এমপি আওয়ামীলীগে উদ্দেশ্যে করে বলেন, আপনারা যেভাবে ২০১৪ ও ১৮ তে বিনাভোটে লুটপাটের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসছেন। মনে কইরেন না ২০২৪ সালে সেই ওয়াকওভার পাবেন। বাংলাদেশের মানুষ আপনাদের সমীচিন জবাব দেবে।
তিনি আরো বলেন, কেন আপনারা দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে রাজনীতি থেকে দূরে সরে রেখেছেন। সে জবাব আপনাদের দিতে হবে। আমাদের ৩৫ লাখ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে কেন মিথ্যা মামলা দিয়ে রেখেছেন। আপনাদের ভয়টা আমরা ভুল বুঝি।

তিনি বলেন, ছাত্রদল নেতা নয়ন লিফলেট বিতরণ করার কারনে বিনা দোষে, বিনা কারনে পাখির মত গুলি করে হাসিনার পুলিশ লীগ হত্যা করেছে। এ বিচার বাঞ্ছারামুপরের মাটিতেই হবে। পুলিশ ভাইয়েরা আপনারা সাবধান হয়ে যান। আমার দেশের আমার ভাইয়ের উপরে গুলি চালাবেন। একটা একটা করে জবাব দিতে হবে।
প্রতিনিধিদলে আরো ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট রফিক শিকদার, সাবেক এমপি এম.এ খালেক, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্যরা। নেতৃবন্দ নয়নের পরিবারের পাশে থাকার ও সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন।

 উল্লেখ্য,আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লায় অনুষ্ঠিতব্য বিএনপির মহাসমাবেশকে সফল করতে গত ১৯ নভেম্বর (শনিবার) বিকেলে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরে প্রচারপত্র বিলি করে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। সে সময় বিএনপি নেতা-কর্মীদের সাথে পুলিশের হাতাহাতির সময় পুলিশের গুলিতে নয়ন নিহত হয়। বাঞ্ছারামপুরে বক্তব্য রাখছেন বিএনপির আর্ন্তজাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা এমপি।
###

Advertisement

Sorry, no post hare.

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com