১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ. ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ ইং

পরিবহনের ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে ধানের মোকামে অনিদিষ্টকালের পরিবহণ ধর্মঘট

আশুগঞ্জ প্রতিনিধি:

জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে দেশের পুর্বাঞ্চলীয় সবচেয়ে বড় ধানের মোকাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে চলছে অনিদিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট।

পরিবহন শ্রমিক ও মালিকদের ধর্মঘটের কারণে গত দুই দিন ধরে মোকাম থেকে বন্ধ রয়েছে ধান বেচা কেনা ও বন্ধ রয়েছে ট্রাকে ধান সরবরাহ। ট্রাকে ধান সরবরাহ বন্ধ থাকায় উপজেলার অন্তত ৩শতাধিক চাতালকলের উৎপাদন ব্যহত হচ্ছে। দ্রুত ট্রাকে পন্য পরিবহন শুরু না হলে চালের বাজারে অস্থিতিশীল হওয়ার আশংকা করছে মিল মালিকরা।

আশুগঞ্জ উপজেলা চাল কল মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক হাজী মোঃ হেলাল শিকদার জানান, জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে ট্রাক মালিকরা অতিরিক্ত ভাড়া চাচ্ছেন। বৃদ্ধির হারও অনেক বেশি। তাদের দাবি মানা হলে ব্যবসায়ীরা লোকসানের মুখে পড়বেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি বাবুল সরকার জানান, জ্বালানী তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে চাতাল মালিকদের ভাড়া বৃদ্ধি করতে বলেছি। তবে দ্রুত এই ভাড়া বৃদ্ধি না হলে আমরা পরিবহন বন্ধ রাখবো। বিষয়টি সমাধান না হলে আমাদের ধর্মঘট অব্যাহত থাকবে।

উল্লেখ্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ, সিলেট ও হবিগঞ্জ জেলার হাওরাঞ্চলে উৎপাদিত ধান বেচাকেনা হয় আশুগঞ্জের মেঘনা নদীর তীরে অবস্থিত দেশের পূর্বাঞ্চলীয় সবচেয়ে বড় ধানের হাট বিওসি ঘাটে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তিন শতাধিক চালকলে ধানের যোগান দেয় এই মোকাম। প্রতিদিন গড়ে ৫০ হাজার মণ ধান বিক্রি হয় এই হাটে। হাট থেকে ধান ক্রয় করে ট্রাকে ধান নিয়ে চাতালকলে পক্রিয়াজাত করে চাউলে রূপান্তর করে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুর ও ফেনীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করে এসব এলাকার চাউলের চাহিদা পুরণ করে।