৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

মোবাইল চুরির অপবাদে রোগীর স্বজনকে আটকে রেখে নির্যাতন, ৬ ঘন্টা পর উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শহরের আল খলিল হাসপাতালে এক রোগীর স্বজনকে আটকে রেখে ব্যাপক নির্যাতন করেছ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে দুপুর ২ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত আটকে রেখে তার উপর চালানো হয় আমনবিক নির্যাতন।

পরে রাতে খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে নির্যাতিত ব্যক্তি মোঃ শফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করে।

জানা যায়, বুধবার দুপুরে হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার কালিকাপুর হরিতলা গ্রামের মোঃ শফিকুল ইসলাম তার স্বজন রঙ্গু মিয়াকে নিয়ে হাড় ব্যাথার চিকিৎসার জন্য শহরের জেল রোডস্থ আল খলিল হাসপাতালে নিয়ে আসে। এ সময় হাসপাতালের আশা নামে এক নার্স তার মোবাইল হারিয়ে যাওয়ার কথা বলে চিৎকার শুরু করে। এ সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর স্বজন শফিকুল ইসলামকে সন্দেহ করে তাকে আটক করে। পরে মোবাইল বের করে দেয়ার কথা বলে তাকে আটকে রেখে বেধরক মারধর করে।

নির্যাতিত শফিকুল ইসলাম জানান, মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমাকে বেধরক পেটানো হয়েছে। আমি এর দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই। এদিকে এ ঘটনার পর হাসপাতালে রোগী স্বজদের মধ্যে চরম ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। তারা এর সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানান।

এ ঘটনার বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কথা বলতে রাজি হননি।
এ ব্যাপারে ১ নং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ রুহুল আমিন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিত ব্যক্তিতে উদ্ধার করেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে মোবাইল চুরির যে অভিযোগ করেছে প্রাথমিকভাবে তা প্রমাণিত হয়নি। নির্যাতিত ব্যক্তি নির্যাতনের বিষয়ে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।