৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৭ই মে, ২০২১ ইং

পালিয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার সময়  চার মাদরাসার ছাত্র উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চার মাদরাসা ছাত্রকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন চত্বর থেকে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়। তারা ট্রেনে করে চট্টগ্রাম যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল বলে পুলিশ জানায়।
উদ্ধারকৃত ছাত্ররা হচ্ছে জেলার সরাইল উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের ধীতপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ওমর ফারুক-(১১), একই এলাকার সফিকুর রহমানের ছেলে আতিকুর রহমান-(১২), মনির হোসেনের ছেলে নূর ইসলাম-(১০) এবং একই উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের বাড়িউরা গ্রামের নাজমুল হাসানের ছেলে মাহমুদুল হাসান-(১২)। তারা সবাই উপজেলার শাহজাদাপুর ইউনিয়নের দেওড়া দারুল উলুম মাদরাসার ছাত্র।

উদ্ধারকৃত মাদরাসার ছাত্র আতিকুর রহমান জানায়, মাদরাসার শিক্ষকরা সব সময় তাদেরকে বকাঝকা করেন, কড়া শাসন করে। সর্বশেষ শুক্রবার সকালে এক শিক্ষক তাদেরকে বকাঝকা করেন। সে জন্য ভয়ে তারা মাদরাসা থেকে পালিয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। সে অনুযায়ী বিকেল ৫টার দিকে তারা বাসে করে শাহবাজপুর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরে চলে আসে। পরে তারা চট্টগ্রাম যাওয়ার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে যায়। রাতের বেলা স্টেশন চত্বরে উদ্দেশ্যবিহীনভাবে ঘুরাফেরা করার সময় স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তবে ছাত্রদের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দেওরা দারুল উলুম মাদরাসার অধ্যক্ষ নুরুল্লাহ আজাদ। তিনি জানান, গত শুক্রবার ওই ছাত্ররা এলাকার একটি আম গাছে ঢিল মেরেছিল। পরে তাদেরকে গাছের মালিকের কাছে ক্ষমা চাইতে বলা হলে তারা মাদরাসা থেকে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, চার মাদরাসার ছাত্র রাতের বেলা রেলওয়ে স্টেশন চত্বরে উদ্দেশ্যবিহীনভাবে ঘুরাফেরা করার সময় স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায় তারা চট্টগ্রামে যাওয়ার জন্য মাদরাসা থেকে পালিয়ে এসেছিল। তিনি বলেন, তাদের অভিভাবকদেরকে খবর দেয়া হয়েছে। অভিভাবকরা আসলে তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। মাদরাসার কোন ত্রুটি আছে কিনা সে বিষয়েও খবর নেয়া হচ্ছে।
###