৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

রাজাকারের নাম বাদ দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার নামে সড়কের নামকরন দাবিতে মানববন্ধন-বিক্ষোভ মিছিল

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে কুখ্যাত রাজাকারের নামে থাকা খাদুরাইল গ্রামের সড়কটির নাম পরিবর্তন করে একজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নামে সড়কের নামকরনের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে উপজেলার সর্বস্তরের মুক্তিযোদ্ধারা।

বুধবার দুপুরে উপজেলার চম্পকনগর বাজারে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন বিজয়নগর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার সার্জেন্ট (অবঃ) তারা মিয়া, সাবেক কমান্ডার ফরিদ আহমেদ ভূইয়া, মুক্তিযোদ্ধা মীর আব্দুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুর রহমান ভূইয়া, বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হৃদয় আহমেদ, চম্পকনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নোবেল চৌধুরী প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে দেলোয়ার হোসেন উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের শান্তি কমিটির সভাপতি ছিলেন। তার নেতৃত্বে তৎকালীন সময়ে উপজেলার অসংখ্য সংখ্যালঘু পরিবারের বাড়ি-ঘরে অগ্নি সংযোগ লুটপাট করা হয়েছিল।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে কুখ্যাত রাজাকার দেলোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া থানায় দালাল আইনে মামলা করা হয়। ওই মামলায় রাজাকার দেলোয়ার হোসেন ৩ মাস ১০ দিন কারাবাস করেন।

বক্তারা বলেন, বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের খাদুরাইল গ্রামের সড়কটি “রাজাকার দেলোয়ার হোসেনের নামে” নামকরণ করা হয়।

গত ২০১৬ সালের ১৬ ফেব্র“য়ারি রাজাকার দেলোয়ার হোসেনের নাম পরিবর্তন করে একজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নামে খাদুরাইল সড়কটির নামকরন করার জন্য উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করা হয়েছিল। কিন্ত চার বছর গত হলেও সড়কটি থেকে রাজাকারের নাম বাদ দেয়া হয়নি।

বক্তারা অবিলম্বে “রাজাকার দেলোয়ার হোসেন” এর নাম বাদ দিয়ে খাদুরাইল সড়কটি একজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নামে নামকরণ করার দাবি জানান।
এ ব্যাপারে বিজয়নগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের প্রশাসক মোঃ ইয়াছিন আরাফাত বলেন, আমি এই উপজেলায় নতুন যোগদান করেছি। এ ব্যাপারে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।