১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনকল্যানমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছেন-মোকতাদির চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী বলেছেন, এদেশে কেউ গৃহহীন থাকবেনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহহীনদের গৃহ নির্মান করে দিচ্ছেন। ভূমিহীনদের মধ্যে ভূমি বন্দোবস্ত দিচ্ছেন।

তিনি মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসন ও সদর উপজেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়নের কাঞ্চনপুরে নব-নির্মিত “কাঞ্চনপুর আশ্রয়ন” প্রকল্পের উপকারভোগী ১৫ টি পরিবারের মধ্যে ঘরের চাবি ও প্রত্যেক পরিবারকে ৩০ হাজার টাকা করে ঋন, “আমার বাড়ি আমার খামার ” প্রকল্পের উপকারভোগীদের মধ্যে ৬০ লাখ টাকা ঋন, বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় নিবন্ধিত জেলেদের মধ্যে ১০টি গরুর বাছুর, দুইটি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির মধ্যে দুটি পিকআপ ভ্যান ও সদর উপজেলার ২০টি পূজা মন্ডপে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তা বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোকতাদির চৌধুরী এমপি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনকল্যানমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করছেন। তিনি ১৯৯৬ সালে প্রথমবার ক্ষমতায় এসে দেশে গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মান করে গৃহহীনদের ঘর দিচ্ছেন। তিনি বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, মাতৃদুগ্ধভাতা চালু করেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বৃদ্ধি করে তাদেরকে ঘর করে দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, জীবন কখনো থেমে থাকেনা। আমাদেরকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। তিনি সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপনের জন্য হিন্দু সম্প্রদায়কের লোকজনকে আহবান জানান। তিনি বলেন, করোনাকালে দেশে বাল্য বিয়ের প্রবনতা বেড়ে গেছে। তাই বাল্য বিয়ে বন্ধে আমাদেরকে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বাল্য বিয়ে বন্ধে সবাইকে সচেতন হতে হবে।

তিনি বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ভারতের তুলনায় আমাদের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। আমাদের সকলকে মিলে একটি বিজ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠন করতে হবে। পরিকল্পিত পরিবার গড়ে তুলতে হবে। দেশের সংবিধান ও আইনের আওতায় আমাদেরকে কাজ করতে হবে। আমাদেরকে নাগরিক দায়িত্ব পালন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়–য়া।

বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার মোঃ শামসুদ্দিন, ইউপি চেয়ারম্যান আল-আমিনুল হক পাভেল ও উপকারভোগী আবু জাহের। আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি উপকারভোগীদের মধ্যে অনুদান ও ঋনের টাকার চেক তুলে দেন।