৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

নাসিরনগরে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত-৬৫

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে ধান মাড়াই করা নিয়ে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘষে ৬ পুলিশ সদস্যসহ উভয় পক্ষের ৬৫ আহত হয়েছে। রোববার রাতে উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের ডিঘর ও সূচীউড়ার তিতাস নদীর পাড়ে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহতদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হয়।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, রোববার রাতে ডিঘর ও সূচীউড়ার তিতাস নদীর পাড়ে এলাকার সরুর রহমানের গোষ্ঠীর ফারুক মিয়া ধান মাড়াই করার সময় একই এলাকার বেলায়েত হোসেনের গোষ্ঠীর কামাল মিয়া মাড়াই করা ধানের উপর একটি ট্রাক্টর উঠিয়ে দেয়। এ সময় ফারুক মিয়া বাঁধা দিলে উভয়ের মধ্যে তকাতর্কি হয়।

পরে বিষয়টি জানতে পেরে সরুর রহমান ও বেলায়েত হোসেনের গোষ্ঠীর লোকজন সন্ধ্যা ৬টার দিকে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। রাত ৯টা পর্যন্ত সংঘর্ষ চলাকালে ৬ পুলিশ সদস্য সহ উভয়পক্ষের ৬৫জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এ ব্যাপারে গোকর্ণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোয়াব আহমেদ জিতু বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’দল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। উভয় পক্ষের আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, বিষয়টি সামাজিকভাবে মিমাংসা করে দেয়ার চেষ্টা চলছে।

এ ব্যাপারে নাসিরনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কবির হোসেন সংঘর্ষের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, সংঘর্ষে নাসিরনগর থানার এস.আই নজরুল ইসলাম, এস.আই তাহের, কনস্টেবল রাজু বড়–য়া, তাহের, তসলিম ও শফিকসহ উভয়পক্ষের লোকজন আহত হয়েছে। তিনি বলেন, সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। তিনি বলেন, এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রনে আছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।