২২শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আজানের পরই মসজিদের মাইকে বলা হচ্ছে ‘ঘরেই নামাজ আদায় করুন’

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনভাইরাসের প্রার্দুভাবরোধে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জরুরি বিজ্ঞপ্তির প্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার আসর নামাজের আজানের পর থেকে মসজিদের মাইকে মুসল্লিদের ঘরে বসে নামাজ আদায় করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

গত মঙ্গলবার আসর নামাজের আজানের পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন মাসুম বিল্লাহ মাইকে বলেন “ধর্মপ্রাণ মুসলমান ভাইয়েরা, আপনাদের সবাইকে বাসায় নামাজ আদায় করার জন্য অনুরোধ করা হলো”

একই ধরনের অনুরোধ করেছেন আখাউড়া পৌর শহরের রাঁধানগর গ্রামের মসজিদের মুয়াজ্জিন। তিনিও আসর নামাজের আজানের পর মসজিদের মাইক দিয়ে মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে এই আহবান জানান।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন মাসুম বিল্লাহ বলেন, করোনভাইরাসের বিস্তার রোধে মুসুল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ দিয়ে গত সোমবার জরুরি বিজ্ঞপ্তি জারি করে ধর্ম মন্ত্রণালয়। ওই বিজ্ঞপ্তিতে মসজিদে শুধুমাত্র খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমগণ ব্যতিত অন্য সকল মুসল্লিদের নিজ নিজ ঘরে নামাজ আদায় এবং জুমার জামায়াতে অংশগ্রহণের পরিবর্তে ঘরে যোহরের নামাজ আদায়ের নির্দেশনা দেয়া হয়। এছাড়া মসজিদের জামায়াত চালু রাখার প্রয়োজনে খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেম মিলে পাঁচ ওয়াক্তের নামাজে অনধিক পাঁচজন ও জুমআর জামায়াতে অনধিক ১০ জন শরিক হতে পারবেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

মসজিদের মুয়াজ্জিন মাসুম বিল্লাহ আরো বলেন, কে সুস্থ কে অসুস্থ মসজিদে সেটি বোঝার কোনো উপায় নেই। একজন অসুস্থ মুসল্লির জন্য সবার ক্ষতি হবে। সেজন্য মুসল্লিদেরকে ঘরে বসেই নামাজ আদায় করার জন্য বলা হচ্ছে। ইমাম সাহেবও নামাজের সময় মুসল্লিদের বিষয়গুলো বুঝিয়ে বলছেন।

এদিকে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এই জরুরি বিজ্ঞপ্তি পাওয়ার পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মসজিদগুলোতে কমে গেছে মুসল্লি। বিভিন্ন মসজিদে আযানের পর মাইকিং করে মুসল্লিদের ঘরে বসেই নামাজ আদায় করার অনুরোধ জানানো হচ্ছে।