৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

করোনার প্রভাবে বেকার হয়ে পড়া আড়াইশ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

 

মোঃ রাসেল আহম্মেদ,এনবি ডেস্ক:

“সেবাই ব্রত, করিব বিকশিত” এ স্লোগানকে সামনে রেখে করোনার প্রভাবে বেকার হয়ে পড়া আড়াইশ পরিবারের মাঝে ২০ কেজি চাল, ৫ কেজি ডাল, ১০ কেজি তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে

সোমবার (৩০ মার্চ) দুপুরে শহরের পাইকপাড়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮০ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে কর্মসূচীর আওতায় শতাধিক পরিবারের মাঝে এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা বি,এম,এর সাধারন সম্পাদক ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল বিভূতি ভুষণ দেবনাথ, ব্যবসায়ী সেলিম মিয়া, মোঃ মফিজ উদ্দিন, বুলবুল মিয়াসহ অত্র ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। পর্যায়ক্রমে আরো দেড়শ অসহায় পরিবারের মাঝে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বিতরণ করা হবে।

এ সময় চিকিৎসক আবু সাঈদ বলেন, দেশের এই ক্রান্তি লগ্নে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। সকলের সম্মিলিত প্রয়াসেই বিশ্ব মহামারি করোনাকে মোকাবেলা করতে হবে। আমরা অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮০ ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা আমাদের অবস্থান থেকে অসহায়দের পাশ দাড়াতে চেষ্টা করছি। সমাজের সকল বিত্তবানেরা যদি অসহায়দের পাশে এগিয়ে আসে তাহলে তারা এই দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবে।

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নতুন করে গত ২৪ ঘন্টায় আরো ১১৩ জন প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মোট ২৭৬৭ জনের মধ্যে মেয়াদ পেরিয়ে যাওয়ায় ২০৬১ জন প্রবাসীকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। বর্তমানে ৭০৬ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

কনোরায় আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য বিজয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ব্রাহ্মণবাড়িয়া হার্ট ফাউন্ডেশন ও পৌর আধুনিক সুপার ভবনের ৩য় তলা চিকিৎসা দেয়ার জন্য প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখতে সরকারের নির্দেশ থাকলেও প্রধান সড়ক সড়ক ব্যতীত অন্যান্য স্থানগুলোতে তেমন কার্যক্রর হচ্ছে না। বিভিন্ন অলি গলিতে মানুষের জটলা চোখে পড়ে।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ একরাম উল্লাহ আরো জানান, এখনো পর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্ত কোন ব্যক্তি সনাক্ত হয়নি