১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বর্ষ পালিত

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিনম্র শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শত বর্ষ ও জাতীয় শিশুদিবস পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে শহরের বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে ৩১বার তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে দিবসটির শুভ সূচনা করা হয়। পরে জেলা পুলিশের পক্ষ জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

এরপর বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তর্ক অর্পন করে জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

পরে পর্যায়ক্রমে জেলা প্রশাসেনর পক্ষে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন, জেলা পুলিশের পক্ষে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি ও সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন সরকার, পৌর সভার পক্ষে মেয়র মিসেস নায়ার কবির, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের পক্ষে সভাপতি খ.আ.ম রশিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক দীপক চৌধুরী বাপ্পী জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন।

এর পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতি সংগঠন ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।

পুষ্পস্তবক অর্পন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবারে র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী। তাঁর নেতৃত্বেই আমরা পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধ করে বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি। রাষ্ট্রের জন্মের সাথে বঙ্গবন্ধুর জন্ম একাকার হয়ে আছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শিশুদের খুবই ভালোবাসতেন। আজকের শিশুরাই একদিন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তুলবে। পরে তিনি মুজিব বর্ষে করোনা ভাইরাস নিয়ে আতকিংত না হয়ে সর্তকতা অবলম্বনের জন্য লিফলেট বিতরন করেন। এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আল মামুন সরকার সহ দলীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।