২২শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং

প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে ল্যাপটপ কেনার টাকা দিলেন সদর ইউএনও

 

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্ধ শিক্ষার্থী (দৃষ্টি প্রতিবন্ধী) মোঃ মিজান মিয়াকে একটি ল্যাপটপ কেনার জন্য ২০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়–য়া। মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে তিনি মিজান মিয়ার হাতে এই টাকা তুলে দেন।

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মিজান মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামের খোরশিদ মিয়ার ছেলে। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র।

ল্যাপটপ কেনার টাকা পেয়ে খুশীতে আপ্লুত মিজান মিয়া বলেন, ইউএনও স্যার আমাকে ল্যাপটপ কেনার পুরো টাকা দেবেন তা প্রত্যাশা করিনি। আমি স্যারের কাছে কিছু আর্থিক সহায়তার চেয়েছিলাম। তিনি বলেন, আমি আমি যে বিভাগে পড়াশুনা করি তার প্রতিটি বিষয় ইংরেজিতে। অন্যের সাহায্য নিয়ে তা রেকডিং করে বাংলায় অনুবাদ করতে হয়।

আমার একটা ল্যাপটপ থাকলে সব বিষয় স্ক্যান করে ল্যাপটপে রেখে পড়তে পারলে অন্যের সাহায্যে ছাড়াই লেখাপড়া করতে পারতাম। আমার একটি ল্যাপটপ খুবই প্রয়োজন। ইউএনও স্যার আমার সব কথা শোনে আমাকে একটি ল্যাপটপ কেনার জন্য ২০ হাজার টাকা দেন। আমাকে সহায়তা করার জন্য আমি স্যারকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পঙ্কজ বড়–য়া বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে সদর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মিজান মিয়াকে ল্যাপটপ কেনার জন্য ২০ হাজার টাকা দিয়েছি।

মিজানের সাথে কথা বলে বুঝতে পেরেছি তার একটি ল্যাপটপ খুবই প্রয়োজন। তিনি বলেন, শুধু তাই নয়, মিজান যেন ভালোভাবে তার লেখাপড়া চালিয়ে যেতে পারে সেজন্য চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে প্রতিমাসে মিজানকে ১ হাজার ২০০ টাকা করে শিক্ষা ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়ার কথাও বলেছি।

পৃথক ঘটনায় ২ জন খুন