৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

আশুগঞ্জের অপহৃত ব্যবসায়ী ইফনুছ, পরিবারে উৎকণ্ঠা

স্টাফ রিপোর্টার:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ব্যবসায়ী মোঃ ইউনুছ ভূইয়া অপহরনের দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখনো তাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে অপহৃত ব্যবসায়ী ইউনুছ আদৌ বেঁচে আছে কিনা এনিয়েও তার স্বজনদের মধ্যে ক্রমেই বাড়ছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। অপহৃত মোঃ ইউনুছ ভূইয়া আশুগঞ্জ উপজেলার আড়াইসিধা ইউনিয়নের দগরীসার গ্রামের মৃত আবদুল কাদির ভূইয়ার ছেলে। তিনি একজন গ্যারেজ ব্যবসায়ী ও চার সন্তানের জনক।

এ ঘটনায় অপহৃতার স্ত্রী পারভীন আক্তার বাদি হয়ে গত ১০ ফেব্রুয়ারি আশুগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এর আগে একই ঘটনায় পারভীন আক্তার গত ২ ফেব্রুয়ারি আশুগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ (জিডি) করেছিলেন।

মামলায় পারভীন আক্তার দাবি করেন গত ১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা আনুমানিক সোয়া ৬টার দিকে তার স্বামী মোঃ ইউনুছ ভূইয়াকে আশুগঞ্জ গোলচত্বর এলাকা থেকে থেকে অজ্ঞাতনামা ৮/১০জন অপহরণকারী অপহরণ করে নিয়ে যায়।তিনি বলেন, বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজনের সাথে তাদের বিরোধ রয়েছে। প্রতিপক্ষের লোকজন ইতিপূর্বে তার স্বামীকে বেশ কয়েকবার হুমকিও দেয়।

মামলায় পারভীন আক্তার অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার আগের রাতে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি মোবাইল ফোনে ( ইমু কলে) তার স্বামীকে শেষ খাবার খেয়ে নেয়ার জন্য হুমকি দেয়। বিষয়টি তার স্বামী তাকেও তাদের অন্যান্য আত্মীয় স্বজনকেও অবহিত করেন। তিনি বলেন, ইউনুছ ভূইয়াকে অপহরনের পর থেকেই তার ব্যবহৃত দুইটি মোবাইল ফোন (০১৭১১-১১৩৯৭৬ এবং ০১৪০৮-৮৯৮৩০৯) নম্বরও বন্ধ রয়েছে। আশুগঞ্জ থানায় মামলার পাশাপাশি বিষয়টি তিনি র‌্যাব-১৪-এর ভৈরব ক্যাম্পকেও অবহিত করেন।

মামলায় বলা হয়, অপহরনের ৩দিন পর গত ৪ ফেব্রুয়ারি অপহরণকারীরা ০১৮৯২-৫৬৯১৪৭ নাম্বার থেকে তার কাছে (পারভীন আক্তার) মুক্তিপন দাবি করেন। তিনি মুক্তিপন দিতে রাজী হলে পরীক্ষামূলকভাবে কিছু টাকা পাঠাতে বলেন অপহরণকারীরা। তাদের কথা মতো পারভীন আক্তার তাদের দেয়া মোবাইল নাম্বার ০১৮১৪-৬০৮৮৫৯ নাম্বারে ৫হাজার একশত টাকা পাঠান।

কম টাকা পাঠানোর কারনে অপহরণকারীরা ক্ষুব্দ হয়ে পরবর্তীতে আর কোন ফোন না করে তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেন। এরপর থেকে অপহরণকারীদের সাথে কোন ধরনের যোগাযোগ করতে পারছেন না পারভীন। এদিকে অপহরনের দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও পুলিশ অপহৃত ইউনুছ ভূইয়াকে উদ্ধার করতে না পারায় পারভীন আক্তার মুষড়ে পড়েছেন। তিনি ধারণা করছেন কাঙ্খিত মুক্তিপন না পেয়ে অপহরণকারীরা তার স্বামীকে খুন করে লাশ গুম করে ফেলেছে।

এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জাবেদ মাহমুদ বলেন, আমরা অপহৃত ইউনুফ ভূইয়াকে উদ্ধারের জন্য চেষ্টা করছি। তাকে উদ্ধারে পুলিশের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।