১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ. ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জিপিএ-৫ ও পাশের হারে মেয়েরা এগিয়ে

স্টাফ রিপোর্টার:

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী (পিইসি) পরীক্ষার ফলাফলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জিপিএ-৫ ও পাশের হারে এগিয়ে রয়েছে মেয়েরা। অবশ্য অংশগ্রনকারির দিকে থেকেও মেয়েরা এগিয়ে। তবে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার জিপিএ-৫- এবং পাশের হারে এগিয়ে ছেলেরা। পুরো জেলার ফলাফল বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় থেকে পাওয়া ফলাফল বিবরণী থেকে জানা যায়, এ বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নয় উপজেলায় ৩৪ হাজার ১০৫ জন বালক ও ২৫ হাজার ৪৮৩ জন বালিকা প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী পিইসিতে অংশ নেয়। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে বালক দুই হাজার ১৩১ জন ও বালিকা তিন হাজার ৬২১। বালকদের পাশের হার ৯৭.৭৪ ও বালিকাদের পাশের হার ৯৮.৩৭।

জেলার সদর উপজেলা থেকে বালক জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৪০ ও বালিকা জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৯৬ জন। সবচেয়ে কম জিপিএ-৫ পেয়েছে নাসিরনগর উপজেলায়। এই উপজেলায় ৭৪ জন বালক ও ১৪৩ জন বালিকা জিপিএ-৫ পেয়েছে।

এছাড়াও নবীনগর উপজেলায় বালক ৩৯৫ জন এবং বালিকা ৭৯০জন, কসবা উপজেলায় বালক ২৪০ ও বালিকা ৪৫৬জন, সরাইল উপজেলায় বালক ১৩৭ জন এবং বালিকা ২৯৫জন, বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় বালক ২০৪জন এবং বালিকা ৩১২জন, আখাউড়া উপজেলায় বালক ১১১জন এবং বালিকা ১৭৬জন, নাসিরনগর উপজেলায় বালক ৭৪ জন এবং বালিকা ১৪৩জন, আশুগঞ্জ উপজেলায় বালক ১০৫জন এবং বালিকা ২৩৭জন, বিজয়নগর উপজেলা বালক ১২৫ জন এবং বালিকা ২১৩জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

সদর উপজেলায় পাশের হার ৯৯.২৩, নবীনগরে ৯৭.৬২, কসবায় ৯৭.৩৭, সরাইলে ৯৭.৬৮, বাঞ্ছারামপুরে ৯৮.৭৩, আখাউড়ায় ৯৭.৯৭, নাসিরনগরে ৯৭.৮২, আশুগঞ্জে ৯৯.৭৯, বিজয়নগরে ৯৬.৬৪। জেলায় গড় পাশের হার ৯৮.১০।

এদিকে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় জেলায় মোট পাশের হার ৯৮.৫০। নয় উপজেলা থেকে মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০২ জন। বাঞ্ছারামপুর ও বিজয়নগর উপজেলা থেকে বালক-বালিকারা শতভাগ পাশ করেছে। এছাড়া সরাইল ও আশুগঞ্জ থেকে বালকরা শতভাগ পাশ করেছে।