৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ. ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

ভিপি হাসান সারোয়ারের নৌকায় হামলা, আহত ১৫

 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী এলাকা থেকে নৌকাযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে ফিরে আশার পথে পত্তন ইউনিয়নের বড়পুকুর আসার পর অতর্কিতভাবে প্রতিপক্ষের কয়েকশ লোক দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র, ইট পাটকেল মেরে হামলা করে নৌকার উপর। হামলা করার উদ্যেশে খালের পাড়ে আগে থেকেই দাড়িয়ে থাকে হামলা কারীরা।

হামলায় যুবলীগ নেতা ভিপি হাসান সারোয়ারসহ ছাত্রলীগের প্রায় ১৫জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। আহত ভিপি হাসান সারোয়ারকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। অন্যরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়।

এ ঘটনার জের ধরে নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নাছিমা মুকাই আলীর ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের বাসভবনে ( এল.আর টাওয়ার) হামলা-ভাংচুর করেছে ছাত্রলীগের কর্মীরা।

এ সময় তারা টাওয়ারের ভাড়াটিয়া নাসিরনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কবির হোসেনের মোটর সাইকেল, দুইটি পাজেরে জীপসহ পাচটি গাড়ি ভাংচুর করে। মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে জেলা শহরের হালদারপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

নাছিমা মুকাই আলীর (এল.আর.) টাওয়ারে হামলা ভাংচুর করার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ সময় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৫জনকে আটক করে।

এ ব্যাপারে স্বতন্ত্র প্রার্থী নাছিমা মুকাই আলী বলেন, প্রতিপক্ষ তানবীর ভূইয়ার সমর্থক ছাত্রলীগ-যুবলীগের ক্যাডাররা তার বাসভবনে ব্যাপক ভাংচুর করেছে। তিনি বলেন, হামলাকারীরা তার বাড়িতে থাকা ৫টি গাড়ি ভাংচুর করেছে।

এ ব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন শোভন বলেন, দুপুরে সাবেক ভিপি হাসান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম বিল্লাহসহ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা একটি নৌকাযোগে বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের বড়পুকুর পৌছে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নাছিমা মুকাই আলীর সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। এতে হাসান সারোয়ার, মাসুম বিল্লাহসহ তাদের ১৫ নেতা-কর্মী আহত হয়।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে যুবলীগ নেতা জুম্মান, মেহেদীসহ ৫জনকে আটক করা হয়। তিনি বলেন, এ ঘটনায় এখনো থানায় মামলা দায়ের করা হয়নি।