,

খোলা আকাশের নীচে অমানুবিকভাবে বসবাস করছে শিশুসহ ৩১ নর-নারী

এনবি প্রতিনিধিঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের কাজিয়াতলী সীমান্তে বাংলাদেশ ও ভারতের শূন্যরেখায় গত তিনদিন ধরে খোলা আকাশের নীচে অবস্থান করছে ৩১জন শিশু, নারী ও পুরষ। ৩১ জনের মধ্যে ৮জন পুরুষ, ৬জন মহিলা এবং ১৭ জন শিশু রয়েছে। গত তিনদিন ধরে তারা প্রচন্ড শীত ও ঘন কুয়াশার মধ্যে ধানী জমিতে অবস্থান করছে।
ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) তাদেরকে জোরপূর্বক বাংলাদেশে পাঠানোর চেষ্টা করলেও বিজিবির সর্তকাবস্থানের জন্য তাদেরকে বাংলাদেশে পাঠাতে পারেনি। ফলে তিনদিন ধরে ওরা সীমান্তের কাছেই খোলা আকাশের নীচে অমানুবিকভাবে বসবাস করছে। বিষয়টি নিয়ে বিএসএফ’র সাথে বিজিবির কয়েকদফা পতাকা বৈঠক হলেও কোন সুরাহা হয়নি।
কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস.এম মান্নান জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করলেও বিজিবির পক্ষ থেকে কিছুই বলা হচ্ছেনা।
ইউপি চেয়ারম্যান মান্নান জাহাঙ্গীর জানান, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বিএসএফ ৩১ জন শিশু, নারী ও পুরুষকে কাঁটাতারের বেড়া পার করে বাংলাদেশে পাঠানোর চেষ্টা করে। তারা বর্তমানে কাজিয়াতলী সীমান্ত এলাকার ২০২৯/৩/এস পিলারের সামনে অবস্থান করছে। যেটি দুই দেশের সীমান্তের শূণ্যরেখা। তিনি বলেন, তাদের আকার-আকৃতি দেখে আমরা ধারণা করছি তারা রোহিঙ্গা। তবে তারা যেন বাংলাদেশে ঢুকতে না পারে সেজন্য বিজিবির সাথে আমরাও সতর্ক আছি।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজিবির এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, এরা রোহিঙ্গা কিনা তা যাচাই-বাচাই চলছে। তিনি বলেন, এ বিষয়ে বিএসএফ’র সাথে কয়েকদফা পতাকা বৈঠক হলেও কোন সুরাহা হয়নি। পুনরায় বৈঠক হবে।
এ ব্যাপারে ২৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল গোলাম কবিরের সাথে তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কথা বলার চেষ্টা করলেও ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।